তোমায় কিভাবে রাখি বিশ্বাস? [] মূলঃফারাহ /তর্জমাঃ তীর্থের কুহক

2014-635368045629418839-941_resized
Farah Chamma 

তোমায় কিভাবে রাখি বিশ্বাস- যখন বিশ্বাস প্রথা হয়ে যায় ব্লাসফেমির নামান্তর।

যেভাবে তুমি করে দেশগুলোকে বিভক্ত , হত্যা ও দুর্নিতির অবাধ বিস্তার

যায়েজ করো – ধর্মের দোহাইয়ে ও ভক্তির নামে।

 

তুমি , সৃষ্টিকর্তার নামে – করছো শিশুগুলোকে এতিম

তুমি, সৃষ্টিকর্তার নামে করছো চুরি, মিথ্যার আসর, করছো ধ্বংস ঘরবাড়ী

কেবলই করতে বসবাস রাজপ্রসাদে- তৈরী যা অন্যায় ও দাসত্বের গাথুনীতে ।

তুমি কি দেবে কোন প্রতিত্তুর , হে অভিযুক্ত?

unnamed

আমরা বিরক্ত তোমার অর্থহীন অভিভাষণে

আমরা বিরক্ত কাব্যশিল্প,সঙ্গীত, শ্লোগানে

আমরা বিরক্ত সংস্কারবাদী আন্দোলনে, কট্টরপন্থায় , নিরপেক্ষতার আহবানে

আমরা অতিষ্ঠ শাসক, নিরাপত্তা মন্ত্রক ও নেতৃত্ব বাস্তবতায়

আমরা অতিষ্ঠ ধর্মীয় আনুগত্য ও অস্বীকারের বাধ্যবাদকতায়

আমরা অতিষ্ঠ , বেড়ে উঠা যেন এক অতি ক্লান্তিকর অভিজ্ঞতায় ।

বলে দাও, সাংবিধানিক মূল্য কতটুকু এহেন অত্যাচারের ছায়াতলে ?

25348305_1873884952923643_3088144121004519029_n

একাকীত্বে বসে খুঁজে পাইনা নিজের অস্তিত্বের প্রতিচ্ছবি

কেননা, আমিও কর্তৃত্ববাদের থাবায়

নিজের মাঝেই আপনাকে খুঁজে পাই রাজনৈতিক কয়েদখানায় ।

নিজের অস্তিত্বের মাঝে-ই করে ফেলি বন্দোবস্ত

নিজের মাঝেই,  এক অস্তিত্ব ঘুরে ফিরে নিয়ে অস্ত্র

আরেকজন খোজে আস্থাসূত্র পশ্চাৎপদতায় ।

নিজের মাঝে, এক চিরকূট নারীর নিঃশ্বাসের মাঝে পৌঁছে বধির কানে

নিজের মাঝেই, টের পাই অনেক বিমান ও শব্দ বিস্ফোরন

আমাদের অস্তিত্বের মাঝে মায়াকান্নারত ঈশ্বর পূজারী,

তাদের মনন কখনও হয়নি  নরম ।

আমার অস্তিত্বে মিশে থাকা আরব দেশগুলো কেবল-ই ক্ষতির উৎসমূল

ফলে করি কিভাবে বিশ্বাস – অস্তিত্বে লুকিয়ে থাকা শত্রুর চিত্ত যেথা ভয়শূন্য ।

আমার আরবীয় অস্তিত্বস্বত্ত্বা খলনায়ক ভূমিকায় অবতীর্ণ

এটি কোষগুলোতে যেন শীতলতায় মিশে গলে যায়, যেন আরেকটি  শীতল যুদ্ধের ডাক আসন্ন  ।

25550302_1873884849590320_3521321937603964017_n

এ এক খলনায়ক… আমার পদক্ষেপ থামিয়ে দেয়… ছাড়পত্রে সীলমোহর পড়ে না ।

এ এমন এক প্রতিপক্ষ … ভ্রমণের  জন্য রাস্তায় রাস্তায় ভিনদেশী সরকারী সাহায্যের প্রাথনা করতে হয় রক্ষার জন্য

এটি ভিনদেশে … কর্মকর্তা থেকে কর্মকর্তা … দূতাবাস থেকে দূতাবাস , প্রত্যাখ্যান-ই ভবিতব্য ।

 

আমার আরবীয় অস্তিত্বস্বত্বা এক প্রতিপক্ষের প্রতিরূপ

এটি বরফের মত গলে যায় বুকের কোষগুলোতে

যেন  আরেকটি শীতল যুদ্ধের স্বরুপ

ফলে, তোমায় কিভাবে করব বিশ্বাস

যখন, আমার আরবীয় অস্তিত্বস্বত্ত্বা

হয়ে ওঠে এক লাজহীন বেহায়া নারীর প্রতিমা”

একজন আবেদনময়ী,  নর্তকী বেশ্যা ।

আমরা নিষিদ্ধনামায় তুলেছি বোধকে ফলে পরিত্যাক্ত হয়েছি

আমাদের নিছক স্ফুর্তি বিস্মৃতি ও তৃপ্তিতে ।

 

হে বিদ্বান উম্মাহ,

আপনি কি আয়ত্ত্ব করেছ?

আপনি আপনার ইচ্ছার বাইরে সকল কিছুই অনুমোদন করেন

আমরা ভিনদেশী শিক্ষার জন্য কাতর হচ্ছি

আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম- ও হবে

আমি কতটুকু রাখব আস্থা যখন আমার জন্মভূমি থেকে   ব্যাকুল আকাঙ্ক্ষা পরদেশী আচার-ব্যবস্থায় ?

আমি কিভাবে রাখব বিশ্বাস যখন তোমরা বিশ্বাসপ্রথাকে ছক বন্দী করো ব্লাসফেমীর কাঠামোরূপ অপেক্ষা কঠোর ?

যেহেতু তুমি জাতিস্বত্ত্বাগুলোকে বিভক্ত করছো, হত্যা ও দুর্নিতির অবাধ বিস্তার

সব যায়েজ করো – ধর্মের দোহাইয়ে ও ভক্তির নামে।

তুমি, যে খোদার নামে সন্তানদের করছো এতিম

তুমি, সে খোদার নাম নিয়ে কিছু-ই পারবে না করতে অর্জন

যতক্ষন পর্যন্ত মানবতাকে করছো নির্যাতন !

তুমি কি চাও এবং তোমার কামনা কি হতে পারে,

কারণ আমার সৃষ্টিকর্তায় বিশ্বাস আছে

ফলে, তোমায় কেন আমায় বিশ্বাস করতে-ই হবে?

তোমার বিশ্বাসপ্রথা তুলে নাও,

কেননা, আমি তোমার  ওপর অনাস্থা জারি করলাম ।

 

[How Must I Believe?(2013) এর বাংলা তর্জমা ]

কবি পরিচিতিঃ  ফারাহ চাম্মা একজন ২৩ বছর বয়সী ফিলিস্তিনী কবি ও অধিকারকর্মী । তাঁর জন্ম সংযুক্ত আরব আমিরাতে ১৯৯৪ সালে । সে বর্তমানে আবুধাবী তে আইন ও রাজনীতি বিজ্ঞানের উপর পড়াশোনা করছে। মাত্র ১৪ বছর বয়স থেকে তাঁর কাব্যপ্রতিভার বিকাশ ঘটতে থাকে ।সে আরবি , ইংরেজি ও ফরাসি, পর্তুগীজ ভাষায় লেখনীর মাধ্যমে সীমানা ও কাঁটাতারের বাস্তবিক অস্তিত্ব  অতিক্রম করে আন্তর্জাতিক সার্বজনীন গ্রহণযোগ্যতা তৈরী করে নিয়েছে । সে অসংখ্য বিষয়ের উপর শব্দের খেলার মাধ্যমে কবিতার ভাষা তৈরী করলেও “I am no Palestanian ( আমি ফিলিস্তিনি নই)” ও “Warrior(যোদ্ধা)” ছিল ফিলিস্তিনী মুক্তিকামী জনতার আন্দোলনের সমর্থনে উৎসর্গকৃত বহুল জনপ্রিয় কবিতা । মাত্র ১৫ বছর বয়স থেকে স্বরচিত কবিতা আবৃত্তি ও বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার মাধ্যমে পরিচিতি লাভ করেন । সে বর্তমানে সঙ্গীতশিল্পী পলের সাথে শিক্ষার্থীদের পরিচালিত কবিতা সংগঠন তৈরীর উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। ফারাহ’র উল্লেখযোগ্য কবিতাগুলোর মধ্যে অন্যতম Put Your Head on the Ground (2013), Firework  (2013), How Must I Believe?(2013), The Nationality(2014) . ফারাহ কবিতার মাধ্যমে মানবতাবাদী সুর –কে পৌঁছে দেওয়ার অদম্য শক্তি নিয়ে দূর্বারভাবে এগিয়ে যাচ্ছে  । ফারাহ তার কবিতার শব্দ যুগলের মাধ্যমে বাস্তবতার বহু উপাদান -কে  প্রশ্নের মুখোমুখি  করাতে সক্ষম হয়েছে । ভূ-রাজনৈতিক বাস্তবতা, আত্মপরিচয়ের রাজীতি ও উপনিবেশিকতা ও মানবাধিকার সহ নানা বিষয়ে বর্তমানে প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছে ফারাহ ।

ফারাহ তার জবানবন্দীতে জানায়, “I like to take part in everything. I like this feeling of blending in. I want to meet poets and people. Without poetry, I feel useless. I hate for a day to go by without becoming engaged in some sort of activity for the world.”

 

ফরিয়াদঃ

Al-Ahram Weekly

Raja Atif Hayat Gotham, A Pakistani Hunmanist Activist

 

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s