আমরা জীবনের শিক্ষা দিই, মহাশয় ! মূলঃ রাফীফ জিয়াদাহ [] তর্জমাঃ তীর্থের কুহক

 

13268219_10154224775191202_2964382083197170208_o

 

আজ, আমার দেহ  মিডিয়া প্রযোজিত  গণহত্যার শিকার

আজ, আমার দেহ ছিল মিডিয়া প্রযোজিত গণহত্যার শিকার; যা আওয়াজের থাবা ও শব্দের পরিসীমায় সীমাবদ্ধ

আজ, আমার দেহ ছিল মিডিয়া প্রযোজিত  গণহত্যার শিকার; যা আওয়াজের থাবা ও শব্দের পরিসীমায় সীমাবদ্ধ যা যথেষ্ট পরিসংখ্যানিক তথ্যবাহুল্যতায় দুষ্ট; যাতে সহজেই কাবু করা যায় প্রতিপক্ষের চিরচেনা গর্জন ।

এবং আমি আমার ইংরেজি-কে বিশুদ্ধ করে তুলেছিলাম ও জাতিসংঘের সম্মতিপত্র করে নিয়েছি আত্মস্থ

কিন্তু ,তবুও সে আমাকে জিজ্ঞেস করত, কুমারী যিয়াদাহ, যদি তুমি তোমার সন্তানদের ঘৃণা শিক্ষা বন্ধ করো ,তবে –ই সব কিছুর সমাধান হয়ে যাবে?

বিরতি…

23164005_1468666136588332_6253988492016091136_n

নিজের স্থীরতার শক্তি অর্জনের জন্য নিজের স্বত্বার সাথে বোঝাপড়া করার চেষ্টা করি তবে স্থীরতা গাজার বোমাবর্ষনের প্রতিক্রিয়ায় জিভের ডগায় খুঁজে পাওয়া যায় না; স্থীরতা পালিয়ে যায় ।

বিরতি … হাসি

আমরা জীবনের শিক্ষা দিই, জনাব

রাফীফ, হাসতে জানে

বিরতি…

adalah-ny-rafeef-ziadah-we-teach-life-33

আমরা জীবনের শিক্ষা দিই, মহাশয় ।

ওরা শেষ আকাশটা দখল করে ফেলার পরেও আমরা ফিলিস্তিনীরা জীবনের শিক্ষা দিই

আমরা জীবনের শিক্ষা দিই; যখন ওরা জাতিবিদ্বেষবিশিষ্ট ঘৃণার দেয়াল তুলে দখল করে ফেলে শেষ আকাশটি ।
আমরা জীবনের শিক্ষা দিই, মহাশয় ।

কিন্তু , আজ আমার দেহ মিডিয়া প্রযোজিত  গণহত্যার শিকার যা আওয়াজ ও শব্দের পরিসীমায় আবদ্ধ

(এবং) শুধুমাত্র আমাদের একটি গল্প দাও, একটি মানবিক আখ্যান ।

তুমি দেখবে , এটি অরাজনৈতিক ।

 

আমরা কেবল জনসম্মুখে তোমাদের ও তোমাদের জনগনের ব্যাপারে বলতে চাই; তাই দাও একটি মানবিক উপাখ্যান ।

উল্লেখ করো না শব্দযুগল – ‘জাতিবিদ্বেষ’ ও ‘দখলদারিত্ব’

এটি রাজনৈতিক নয় ।

Hadeel_Still05

তোমাকে একজন সংবাদকর্মীর মত আমাকে সাহায্য করতে হবে যেন একটি আখ্যান ছূড়ে দেওয়া যায় শ্রোতাদের মাঝে- যেটি রাজনৈতিক কোন গল্প নয় ।

আজ , আমার দেহ টেলিভিশন প্রযোজিত এক গণহত্যা

গাজার একজন চিকিৎসা আর্ত নারীর আখ্যান তুমি কিভাবে আমাদের দেবে?

কিভাবে দেবে তুমি?

তোমার কি যথেষ্ট ভাঙ্গা-চোরা দেহাবশেষ রয়েছে সূর্যের কিরণ ঢাকার অশেষ সামর্থ্যে ?

মৃতের সংখ্যা জানাও এবং বারশো শব্দের মধ্যে একটি নামতালিকা তৈরী করে ফেলো ।

আজ, আমার দেহ একটি মিডিয়া প্রযোজিত গণহত্যার আয়োজন যা আওয়াজ ও শব্দের  পরিসীমায় আবদ্ধ

(এবং) নিষ্পাপদের; সন্ত্রাসী রক্তের  সংস্পর্শ থেকে আলাদা করে নাও।

কিন্তু তারা দুঃখ প্রকাশ করছিল

তাদের মায়া হচ্ছিল গাজার নিরীহ গবাদী পশুগুলোর জন্য ।

ফলে , আমি তাদেরকে জাতিসংঘের সম্মতিপত্র ও পরিসংখ্যান হস্তান্তর করলাম এবং আমরা  নিন্দা, তিরস্কার – আক্ষেপ ও প্রত্যাখ্যান জ্ঞাপন করলাম ।

(এবং) এ উভয়পক্ষ সমকক্ষ নয়- নিপিড়ক ও নিপীড়িত ।

images (1)

 

এবং একশত, দুইশত ও একহাজার

এর মধ্যে, যুদ্ধপরাধ ও বেপরোয়া হত্যাকান্ডে, আমি হেসে বললাম ‘নয়(না) ভিনদেশী’ ; হাসলাম; ‘নয়(না) সন্ত্রাসী’

(এবং) আমি গুনলাম, আমি গুনলাম একশত… দুইশত… ও এক হাজার মৃতদেহ।

 

কেউ কি বাহিরে আছো?

পাচ্ছো কি শুনতে?

আমার ইচ্ছা ছিল যদি ওদের দেহে মুর্দার কাফনে ঢেকে দিতে পারতাম

আমার সাধ জাগে শুধু খালি পায়ে দৌড়ে প্রত্যেকটি শরণার্থী ক্যাম্পে পৌঁছে যেতাম ও প্রত্যেক শিশুকে নিতাম কোলে , তাদের কানগুলো হাত দিয়ে চেপে ধরতাম;

যেন আমার মত করে আর কোনদিন তাদের বোমাবর্ষনের শব্দ না শুনতে হয় ।

tadamonrafeefpointing

আজ, আমার দেহ একটি মিডিয়া প্রযোজিত গণহত্যা

(এবং) শুধু আমাকে এতটুকু বলো,  তোমাদের জাতিসংঘের সম্মতিপত্র কিছুই করতে পারেনি

নেই কোন আওয়াজ, নেই কোন আওয়াজ যার সাথে আমার পরিচিতি, ধর্তব্যেই নেই কত ভালো পশ্চিমা শিক্ষা(ইংরেজি) আমার  , কোন আওয়াজের গুঞ্জন নেই, কোন আওয়াজের গুঞ্জন নেই , কোন আওয়াজের গুঞ্জন নেই, কোন আওয়াজের গুঞ্জন তাদের জীবন পারবে না ফেরাতে  ।

 

কোন শব্দের গুঞ্জন-ই ঠিক করতে পারবে না  ।

আমরা জীবনের শিক্ষা দিই, মহাশয় !

আমরা জীবনের শিক্ষা দিই, মহাশয় !

আমরা ফিলিস্তিনীরা প্রতিনিয়ত ভোরে ওঠে বাকী ধরণীকে জীবনের শিক্ষা দিই, মশাই !

 

 

কবি পরিচিতিঃ রাফীফ জিয়াদাহ( Rafeef Ziadah) ১৯৭৯ সালে লেবাননের বৈরুতে এক ফিলিস্তিনী শরণার্থী পরিবারে জন্ম নেন । তার বেড়ে উঠা তিউনিশিয়ায় ও অল্প বয়স থেকেই তার লেখালেখিতে হাতেখড়ি । সে টরেন্টোর ইয়র্ক বিশবিদ্যালয়ে অধ্যয়ন করেন । ২০০৪ সালে প্রথম সে প্রথম জনসম্মুখে তার বর্নবাদের অভিজ্ঞতার উপর ভিত্তি করে তার লেখনী উপস্থাপনে হাজির হন । ২০০৯ সালে তার প্রথম কবিতার এলবাম প্রকাশ পায়- হাদীল(Hadeel). ২০০৮ সালে  জিয়াদাহ অন্টারিও আর্টস কাউন্সিলের  ‘Word of Mouth’ প্রোগ্রামের মাধ্যমে অর্থায়ন পান যা দিয়ে তিনি তার প্রথম এলবাম হাদীলের প্রযোজনা ব্যয় মেটান । জিয়াদাহ পুরো বিশ্বব্যাপী নানা জায়গায়  অনুষ্ঠান ও কবিতার কর্মশালা করে বেড়ান । ২০১১ সালে ফিলিস্তিনী -আমেরিকান কবি রেমি কানাযি(Remi Kanazi) সাথে বই ‘Poetic Injustice’ এর বিশ্ব-প্রচারণার অংশ হিসেবে একত্রে যুক্তরাজ্যের লন্ডনে অনুষ্ঠানে একত্রে অংশ নেন । ২০১২ সালে গাজার মধ্য পশ্চিম তীর কবি অলিম্পিয়াডের প্রতিনিধিত্ব করেন । একই বছর হেলসিঙ্কি( Helsinki) তে ‘ওয়ার্ল্ড ভিলেজ ফেস্টিভাল'(World Village Festival)  এ অংশগ্রহণ করেন। ২০১৪ সালের গ্রীশ্মে সে “দ্যা গার্ডিয়ান”(The Guardian) পত্রিকায় গাজায় ইজরাইলী হামলার প্রতিবাদে  ও বয়কট নিষেধাজ্ঞা ও বর্জন আন্দোলনের ওপর  খোলা সম্পাদকীয় লেখেন । ২০১৪ সালের ১৪ নভেম্বর জিয়াদাহ, ফিলিস্তিনী হিপ-হপ দল DAM- Palestine এর সাথে ফিলিস্তিনীদের সাহাযার্থে  “Manchester Palestine Action” অনুষ্ঠানে অংশ নেন । রাফীফ জিয়াদাহ তার কবিতা ‘Shades of Anger’ ও “We teach life,Sir!’ জন্য অত্যধিক জনপ্রিয়।জিয়াদাহ’র কবিতা “We teach life,sir!” স্কটল্যান্ডের সংসদ অধিবেশনের ‘ফটোগ্রাফি শো’  এর জন্য নির্বাচিত অয়েছিল যার নাম ভূমিকা ছিল- ”  “We Teach Life: The Children of the Occupation.”

 

দোহাইঃ

We teach life, sir! এর বাংলা তর্জমা

ছবিসূত্রঃ ইন্টানেট

Raja Atif Hayat Gotham; A Pakistani Humanist Activist

Pycott, Lauren

“DAM, Katibeh 5 and Rafeef Ziadah, Manchester Concert at Kraak” 

“As the Gaza crisis deepens, boycotts can raise the price of Israel’s impunity 

“An interview with Palestinian poet, Rafeef Ziadah | Women’s Views on News”

Palestinian poets Remi Kanazi and Rafeef Ziadah — “We teach life, sir

 

 

 

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s